How to create youtube channel। কীভাবে একটি প্রফেশনাল ইউটুব চ্যানেল বানাবেন

Youtube হলো এমন একটি ভিডিও shareing প্লার্টফর্ম যেখানে আপনি আপনার নিজস্ব কনটেন্ট ভিডিও আকারে পোস্ট করে, ওই ভিডিও থেকে লাইফ টাইম Passive income করতে পারেন। ইউটুব হলো বিশ্বের এক নম্বর ভিডিও শেয়ার করে ইনকাম করার প্লার্টফর্ম। এটি google দ্বারা পরিচালিত আমেরিকান সোশ্যাল মিডিয়া app. এই Youtube বিশ্বের দ্বিতীয় নম্বর সার্চ ইঞ্জিন। বর্তমানে লক্ষ লক্ষ মানুষ YouTube channel বানিয়ে ভিডিও আপলোড করে মাসে হাজার-হাজার টাকা ইনকাম করছে। তারা সবাই আমার আপনার মতো সাধারণ মানুষ। তারা যদি ইউটুব থেকে ইনকাম করতে পারে তাহলে আপনি কেন পারবেন না ? আপনি চাইলে আপনার পছন্দের বিষয়ের উপর ভিডিও বানিয়ে ইউটুবে পোস্ট করে সেখান থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। তাই আজকের এই আর্টিকেল শেখাবো কিভাবে একটি প্রফেশনাল ইউটুব চ্যানেল (how to create professional youtube channel) বানাবেন। তাই আর্টিকেলটি সম্পর্ণ শেষ পর্যন্ত পড়তে থাকুন আমি আপনাকে সম্পর্ন ভিডিওর মতো সুন্দর ভাবে বুঝিয়ে দেবো।

YouTube channel বানানোর আগে আপনাকে আপনার পছন্দ অনুযায়ী Category (Music, Entertainment, Film & Animation, News & Politics, Kids, Comedy, Education, HowTo & Style) select করে নিতে হবে।

YouTube channel বানানোর জন্য যেগুলি অবশ্যই প্রয়োজন সেগুলি হলো-

  1. ইন্টারনেট কানেকশন
  2. স্মার্টফোন/কম্পিউটার/ল্যাপটপ
  3. জিমেইল (Gmail) একাউন্ট

YouTube channel বানানোর step by step process:

Youtube চ্যানেল আপনি মোবাইল বা ডেস্কটপের মাধ্যমে create করতে পারেন। কিন্তু প্রফেশনাল চ্যানেল ডেস্কটপের মাধ্যমে সুন্দর ভাবে বানানো যায়। কারণ আপনি ডেস্কটপের মাধ্যমে বড়ো স্ক্রিনে ইউটুবের সমস্ত ফীচার গুলো দেখতে পাওয়া যায়। আপনার কাছে যদি ডেস্কটপ না থেকে তাহলে কোনো সমস্যা নেই। আমি আপনাকে মোবাইলের মাধ্যমে প্রফেশনাল ইউটুব চ্যানেল বানানো দেখাবো।

১st step: সবার প্রথমে আপনার ফোনের Chrome browser ওপেন করে Youtube search করে Youtube official Website টি ওপেন করবেন। তার পরে আপনার ব্রাউজার টিকে “Desktop site” করে নিবেন তাহলে আপনার মোবাইলে ইউটুব কম্পিউটারের মতো দেখাবে।

২nd Step: এবার ওই পেজের ডানদিকের কর্ণারে প্রোফাইলের মতো একটি আইকন দেখতে পাবেন এবং সেখানে ক্লিক করে দিবেন।তাহলে আপনার Gmail account show করবে এবং ঠিক তার নীচে অনেক গুলি option পাবেন তার মধ্যে শুধু “Create a channel” এ ক্লিক করে দিবেন।

৩th Step: আবার আপনার সামনে একটি নতুন উইন্ডো ওপেন হবে যেখানে আপনাকে চ্যানেল নাম এবং প্রোফাইল পিকচার সেট করতে বলবে। এই পেজ টাতে আপনার পছন্দ অনুযায়ী একটি unick নাম এবং Profile পিকচার লাগিয়ে “Create Channel” option এ ক্লিক করে দিবেন। ব্যস তাহলে আপনার Video উপলোডে করার জন্য প্রস্তুত হয়ে যাবে।

YouTube channel Customize:

Youtube channel বানানোর পরে এমন কিছু কাজ রয়েছে যেগুলির মাধ্যমে আপনার চ্যানেল একটি প্রফেশনাল চ্যানেলে পরিণত হবে। একটি প্রফেশনাল চ্যানেল বানানোর জন্য যে কাজ গুলি অবশ্যই করতে হবে সেগুলি পর পর step by step আলোচনা করা হলো-

Youtube চ্যানেল customize করার জন্য আপনাকে “Youtube Studio” আস্তে হবে। আপনি ডিরেক্ট “Customize channel” এ ক্লিক করে ইউটুব ষ্টুডিও তে প্রবেশ করতে পারেন অথবা আপনার জিমেইল প্রোফাইলের ওখান থেকে youtube studio তে প্রবেশ করতে পারেন।

Channel Customize: চ্যানেল কাস্টোমাইজ হলো এমন একটি বিষয় যেটার মাধ্যমে আপনার এর রূপ পরিবর্তন হয়ে যাবে। অনেকটা মেকাপের মতো।

Channel Customize এর মধ্যে তিনটি ভিন্ন ভিন্ন অপসন পাবেন এদের মধ্যে ইমপোর্টেন্ট হলো Branding এবং Besic Info. Branding এর মাধ্যমে আপনার চ্যানেলকে একটি brand হিসাবে প্রতিষ্টিত করতে পারবেন। এখন থেকে আপনি আপনার চ্যানেলের Profile photo, banner image ও Video watermark add করতে পারেন। Basic info এর মাধ্যমে আপনি আপনার চ্যানেলের কিছু বর্ণনা করতে পারেন। এছাড়াও Social media, Website link এবং contact Mail Id শেয়ার করতে পারেন।

Settings: Channel Customize করার পাশাপাশি settings এর মধ্যে এমন কিছু কাজ রয়েছে যেগুলি অবশ্যই করে রাখা প্রয়োজন যেমন- Channel keyword, Subscriber count, Channel Language, Thumbnail set করার জন্য Intermediate features phone number verification এর মতো কিছু সেটআপ।

Video Upload: YouTube channel সেটআপ করার সমস্ত কাজ হয়ে গেলে আপনি ভিডিও আপলোড করতে পারেন। ভিডিও আপলোড করার সময় ভিডিওতে Taitel, Description, Tag ভালো ভাবে use করবেন। মোবাইলের মাধ্যমে YouTube channel কন্ট্রোল করার জন্য YT Studio App install করতে পারেন। এই app এর মাধ্যমে আপনি ডেস্কটপের মতো চ্যানেলকে 90% কন্ট্রোল করতে পারবেন।

আমার শেষ কথা; আজকের এই আর্টিকেলের মাধমে আমরা শিখলাম কীভাবে একটি professional Youtube channel বানাতে হয়। যদি এই বিষয়ে সমন্ধে আপনার কোনো রকম সমস্যা হয় তাহলে নির্দ্বিধায় comment করে জানবেন। যদি আর্টিকেলটি ভালো লাগে তাহলে শেয়ার করবেন। শেষ পর্যন্ত পাড়ার জন্য ধন্যবাদ।

2 thoughts on “How to create youtube channel। কীভাবে একটি প্রফেশনাল ইউটুব চ্যানেল বানাবেন”

Leave a Comment