Power of compounding | ধনী হওয়ার বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি

আমরা সকলে ধনী হতে চাই এবং নিজের সমস্ত চাহিদা, শখ, আল্লাদ পূরণ করতে চাই কিন্তু এই ধনী হওয়ার স্বপ্নটা স্বপ্নই থেকে যায়। কখনো সেটাকে আর বাস্তবে ঘটে না। কিন্তু আজ আমি Finance এর উপর এমন একটি powerful subject নিয়ে আলোচনা করতে চলেছি যে আপনি যদি আপনার জীবনে (life) প্রয়োগ (apply) করেন তাহলে আপনি 10 বছরের মধ্যে ধনী ব্যাক্তিতে পরিণত হবে। এখন আপনার বয়স যদি 18-25 বছর হয় তাহলে আপনার জন্য সুবর্ণ সুযোগ রয়েছে। আপনি বয়স 30 বছর হতে হতে আপনার অনেক অর্থ হয়ে যাবে। এমন এই subject যেটা আপনাকে কয়েক দশকে Millionaire বানিয়ে দিতে সক্ষম। এই সাবজেক্টের নাম হলো Compounding Interest .

আপনি যদি লাইফে Compounding Interest প্রয়োগ করেন তাহলে আপনি কোথা থেকে কোথায় চলে যাবেন just আপনার ধারণা নেই। বিজ্ঞানী আইনস্টাইনর সঙ্গে আমরা অনেকেই পরিচিতি। তিনি Compounding Interest সম্পর্কে মন্তব্য করেছেন যে “Compunding Interest বিশ্বের 8 তম আশ্চর্য। Compounding Interest হলো মহাবিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী শক্তি”

চলুন এবার Power of Compounding সম্পর্কের জানা যাক –

Power of Compounding:

Compounding এর ক্ষমতা সম্পর্কের বোঝানোর জন্য একটি গল্প বলছি যাতে আপনার মাথায় সহজে বিষয়টি পরিষ্কার হয়।

প্রাচীন কালে একটি রাজ্যে একটি ব্যবসাইকে পরিবার থাকত। ব্যবসাইকের নাম হলো সুরেশ। হঠাৎ একদিন তাদের বাড়িতে সবকিছু চুরি হয়ে যায়। কিছু দিন পরে তাদের বাড়িতে খাওয়ার জন্য কোনো খাবার ছিল না। সুরেশকে তার স্ত্রী বলে তুমি রাজা মশায়ের কাছে গিয়ে কিছু টাকা সাহায্য নিয়ে এসো। সুরেশ ভালো গান গায়তে পারতো এবং সে ছিল খুবই চালাক-চতুর। সে রাজদরবারে গিয়ে রাজা মশাইকে গান গেয়ে শোনালো। রাজা মশায় তার গানে খুবই সন্তষ্ট হলো এবং সুরেশকে বলে তুমি কি উপহার নিতে চাও। সুরেশ বলে মহা রাজ আমি 1 লক্ষ স্বর্ণ মুদ্রা নিতে চাই। মহারাজা বলে একটি গান শোনানোর জন্য কাউকে আমি 1 লক্ষ স্বর্ণ মুদ্রা কখন দিতে পারবো না, এটা অসম্ভ। তখন সুরেশ বলে মহারাজ আপনার কাছে কি দাবা বোর্ড (chess board) আছে। মহারাজা বলে কেন থাকবে না। মন্ত্রী Chess board রাজা সামনে নিয়ে হাজির হয়। তখন ব্যবসাদার (সুরেশ) বলে মহা রাজা দাবা বোর্ডে মোট 64 টি ঘর রয়েছে আমি আপনার কাছে থেকে 64 দিন স্বর্ণ মুদ্রা নেবো। প্রথম দিন আপনি আমাকে 1 টি স্বর্ণ মুদ্রা দেবেন ঠিক তার পরের দিন গুলোতে আপনি আমাকে আগের দিনে যে মুদ্রা দেবেন তা দ্বিগুন করে দেবেন আর আমি দাবা বোর্ডে লাল দাগ কেটে যাবো। যেমন প্রথম দিন1টি , দ্বিতীয় দিন 2টি, তৃতীয় দিন 4টি, চতুর্থ দিন 8টি এই ভাবে। মহারাজা না ভেবে বলে ঠিক আছে তুমি তুমি মন্ত্রীর কাছে থেকে প্রতিদিন স্বর্ণ মুদ্রা নিয়ে যাবে। এই বলে তাকে প্রথম দিন 1টি স্বর্ণ মুদ্রা দেওয়া হলো। এই ভাবে 22 দিন স্বর্ণ মুদ্রা সুরেশকে দেওয়ার পরে মন্ত্রী লক্ষ করে মহারাজার রাজকোষের স্বর্ণ মুদ্রা সব শেষ হয়ে গেছে। তখন মন্ত্রী দৌড়াতে দৌড়াতে মহারাজার কাছে এসে বলে রাজা মশাই সব শেষ হয়ে গেছে। তখন মহারাজা বলে কি হয়েছে মন্ত্রী কেউ আমাদের রাজ্যে আক্রমণ করেছে নাকি! তখন মন্ত্রী বলে আমাদের রাজকোষের সব স্বর্ণ মুদ্রা শেষ হয়েগেছে। তখন রাজা বলে কার এমন সাহস যে আমার সব স্বর্ণ মুদ্রা চুরি করে নিয়েছে। মন্ত্রী মহারাজাকে বলেমনে আছে আপনার সুরেশ ব্যবসায়ীর কথা। আপনি তো ব্যবসায়ীকে 64 দিন পর্যন্ত স্বর্ণ মুদ্রা দ্বিগুন করে দিতে বলেছেন। আমি 22 দিন (20,97,152 টি) স্বর্ণ মুদ্রা দেওয়া পরে লক্ষ করি যে রাজকোষ শূন্য হয়েগেছে। তখন মহারাজার রাতের ঘুম হারিয়ে গেছে। পরের দিন যখন সুরেশ যখন 41,94,304 টি স্বর্ণ মুদ্রা নিতে আসে তখন মহারাজা তার কাছে গিয়ে বলে আপনি যে এত জ্ঞানী আমি ভাবতে পারিনি। এখন আমার কাছে আর একটিও স্বর্ণ মুদ্রা নেই আপনাকে দেওয়ার জন্য, শুধু সিংহাসনটি ছাড়া তাই আপনি আমার সিংহাসন গ্রহণ করুন।

এই গল্পটির মাধমে আমরা power of compounding সম্পর্কে শিখলাম। নীচের ছকে 23 দিন পর্যন্ত সুরেশ কত গুলি স্বর্ণমুদ্রা পেয়েছে। আপনি কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না 64 দিন পর্যন্ত কতগুলি স্বর্ণ মুদ্রা পেতো।

দিন স্বর্ণ মুদ্রা সংখ্যা দিন স্বর্ণ মুদ্রা সংখ্যা দিন স্বর্ণ মুদ্রা সংখ্যা
1192561765,536
2210512181,31,072
34111,024192,62,114
48122,048205,24,288
516134,0962110,48,576
632148,1922220,97,152
7641516,3842341,94,304
81281632,7682483,88,608

এই গল্পটির আমার জানলাম যে Compounding কিভাবে কাজ করে। compounding হলো এমন একটি চেন সিস্টেম যেটা দীর্ঘ সময় ধরে বৃদ্ধি পেয়ে শেষে আপনাকে একটি আশ্চর্য জনক results দেয়। একটি ছোট উদহারণ দিয়ে বিষয়টি সুন্দর ভাবে বোঝাচ্ছি।

ধরুন, আপনার কাছে 1 লক্ষ টাকা আছে। আপনি আপনার টাকাকে 12% interest (retun) উপর 5 বছরের জন্য ব্যাঙ্কে বা কোনো সরকারি বন্ডে রেখে দিলেন। 5 বছর পরে আপনার ১ লক্ষ টাকা উপর 76,232 টাকা retun পাবেন তাহলে আপনার মোট 1,76,234 টাকা পাচ্ছেন। এটাই হলো Compounding intrest. এক্ষেত্রে দীর্ঘ সময় ধরে আপনার অর্থ compounding হয়ে একটি আশ্চর্য জনক results পেলেন।

কিন্তু বর্তমান সময়ে এমন ব্যাঙ্ক থেকে 12% পাওয়া অসম্ভব। আপনি যদি সেভিং একাউন্টে টাকা রাখেন তাহলে আপনাকে 3-4% interest দেওয়া হয়ে থাকে আবার আপনি যদি Fixed deposit করেন তাহলে 7-8% দেওয়া হয়। আপনি আপনি এই 8% থেকে কত টাকাই বা retun পাবেন। প্রতি বছর ইন্ডিয়াতে 6% তো মূল্যবৃদ্ধি (inflation) হচ্ছে। এতে আপনি কখনো ধনী ব্যাক্তি হয়ে উঠে পারবেন না। তাহলে কীভাবে ধনী হয়ে উঠবেন?

How to become rich:

“সম্পদ সেটা নয় যেটা আপনি উপার্জন করেন সম্পদ সেটাই যেটা আপনি ধরে (সঞ্চয়) রাখতে পারেন”। ধনী হওয়ার জন্য আপনাকে অর্থ উপার্জন করতে হবে পাশাপাশি ওই অর্থকে সঠিক ভাবে invest করতে হবে তবেই আপনি একদিন মিলিনিয়র হয়ে যাবেন। The Psychology of money বইতে একটি আমেরিকার একটি দুই ব্যাক্তির ঘটনা উল্লখ করা রয়েছে -রোনাল্ড রিড নাম একজন ব্যাক্তি ছিলেন যিনি চৌকিদার এবং গ্যাস স্টেশনে করতেন। তিনি একজন সাধারণ মানুষ ছিলেন। 2014 সালে 92 বছর বয়সে যখন তিনি মারা যান তখন তার মোট সম্পত্তি ছিল 8 million US ডলার। তার মধ্যে 2 million ডলার তার পরিবারের জন্য রেখে যায় আর 6 million dollar হাসপাতাল আর লাইব্রেরি জন্য দান করেন। তিনি কোনো লটরি পাননি। রোনাল রিড তাঁর উপার্জন টাকার কিছু পার্সেন্টেজে শেয়ার বাজারে ইনভেস্ট করে এবং কয়েক দশক পরে ওই টাকা 8 million এ পরিণত হয়।

অন্যদিকে রিচার্ড ফুস্কান নামে একজন ব্যাক্তি ছিলেন। তিনি রোনাল্ড এর থেকে বেশি শিক্ষিত (M.B.A ) ছিল এবং তিনি আর্থিক ভাবে অনেক উন্নত ছিলেন। তিনি ব্যবসীক লোক। রিচার্ড ফুস্কান নিজের বিলাসিতা জীবন উপভোগ করার জন্য একটি বিরাট বাড়ি ক্রয় করে ঋণ নিয়ে। এর ফলে তিনি আর্থিক ভাবে খুবই দুর্বল হয়ে পড়েন। শেষের দিকে তিনি দেওউলিয়া হয়ে যান।

এই বাস্তবিক ঘটনা থেকে একটি দারুন শিক্ষার বিষয় রয়েছে। রোনাল্ড রিড বেশি উপার্জন এবং বেশি শিক্ষিত না হওয়া শর্তেও তিনি শেষে বাজিমাত করেন।

আমার জানলাম যে ব্যাঙ্ক থেকে বেশি retun পাওয়া কখনো সম্ভব নয় তাহলে কোথায় invest করলে আমার বেশি retun পাবো-

শেয়ার বাজার:

আমাদের মধ্যে অনেকে রয়েছে যারা শেয়ার বাজার সম্পর্কে অল্প হলেও কিছু না কিছু জানে। শেয়ার বাজার থেকে আপনি দীর্ঘ সময়ের জন্য ব্যাঙ্কের তুলণালয় বহু গুণ বেশি retun পাবেন। কিন্তু যদি অল্প সময়ের জন্য শেয়ার বাজারে নিবেশ করেন তাহলে loss হওয়ার সম্ভাবনা থেকে। আপনি যদি দীর্ঘ সময়ের জন্য শেয়ার বাজারে নিবেশ করেন তাহলে একদিন আপনি মিলিনিয়ার হয়ে যাবেন। শেয়ার বাজারে একটি সুবিধা রয়েছে এখানে আপনি অল্প বিনিয়োগ করে retun পেতে শুরু করবেন।

রিয়েল এস্টেট:

রিয়েল এস্টেট কথার অর্থ হলো আবাসন, ভূসম্পত্তি ভাড়ায় দেওয়া বা বিক্রি করা। রিয়েল এস্টেট থেকে অনেক ভালো পরিমানে retun পাওয়া যায় এবং শেয়ার বাজারে তুলনায় রিস্ক কম কিন্তু রিয়েল এস্টেট থেকে retun পাবার জন্য আপনাকে 60-70 লক্ষ এখানে ইনভেস্ট করতে হবে।

মিউচুয়াল ফান্ড:

যারা stock মার্কেট সম্পর্কে ভালো জানে না বা যারা নিজে শেয়ারের উপর নিজে রিস্ক নিতে চাইনা তাদের জন্য মিউচুয়াল ফান্ড বেস্ট, কারণ মিউচুয়াল কোম্পানি stock ম্যানেজ করে। কিন্তু মিউচুয়াল ফান্ডে শেয়ার বাজারে তুলনায় কম retun পাওয়া যায়।

আমার শেষ কথা:

আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমার compounding এর ক্ষমতা সম্পর্কে আলোচনা করলাম এবং ধনী হওয়ার ক্ষেত্রে compounding এর মূল্য কতটা এই আলোচনা করলাম। আপনি যদি ধনী হতে চান তাহলে আজ থেকে টাকার উপর compounding শুরু করে দিন। ফলে আপনার বয়স যখন 50 বছর হয়ে যাবে তখন আপনি বহু সম্পদের মালিক হয়ে যাবেন। যদি আজ এই আর্টিকেলটি ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই আপনার প্রিয়নাজনদের সঙ্গে শেয়ার করবেন যাতে তারা Compounding সম্পর্কে জানতে পারে এবং তাদের লাইফে apply করতে পারে। এই বিষয়ের উপর আপনার যদি কোনো রকম প্রশ্ন থাকে তাহলে কমেন্ট করে জানাবেন। এই আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

Leave a Comment